মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ এপ্রিল ২০১৭

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ও পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন

পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে দেশের পারমাণবিক অবকাঠামো উন্নয়ন অপরিহার্য। দেশের পারমাণবিক অবকাঠামো উন্নয়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন দীর্ঘ সময় ধরে আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার সহিত ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার সহায়তায় ইতোমধ্যে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের ২০০ জনের অধিক বিজ্ঞানীকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে।  প্রশিক্ষিত জনবলের অধিকাংশই বর্তমানে প্রকল্প সংক্রান্ত বিভিন্ন চুক্তি সম্পাদন এবং প্রকল্প বাস্তবায়নের সাথে জড়িত।

প্রকল্প ব্যবস্থাপনার কাজে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ইতোমধ্যে বন্ধুপ্রতিম দেশ ভারতে ৮৮ জন কর্মকর্তার Foundation Course on Nuclear Energy (FNCE) বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মসূচী সমাপ্ত হয়েছে।  বাংলাদেশ পরমাণূ শক্তি কমিশন থেকে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন  (১ম পর্যায়) প্রকল্পে সংযুক্ত হয়ে বিভিন্ন পর্যায়ের ৮২ জন এবং আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে নিয়োগকৃত ৪০ জন সর্বমোট ১২২ জন প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজে নিয়োজিত আছে। 

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের মূল পর্যায়ে কাজের জন্য Project Management Unit (PMU)-এর জন্য অনুমোদিত প্রয়োজনীয় জনবলঃ 

 

                      

ইতোমধ্যেই প্রকল্পের সার্বিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য চলমান কাজের সাথে সামঞ্জস্য রেখে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ১৫২টি পদে জরুরী ভিত্তিতে জনবল নিয়োগের উদ্যেগ গ্রহণ করা হয়েছে। 

আন্তর্জাতিক রীতি অনুযায়ী পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং প্রকল্প ব্যবস্থাপনার সাথে সংশ্লিষ্ট জনবলের কাজের প্রকৃতিও ভিন্ন এবং তাদের পৃথক আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এজন্য পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং প্রকল্প ব্যবস্থাপনার জন্য পৃথক পৃথক জনবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। আইএইএ-এর গাইডলাইন এবং আন্তর্জাতিক রেওয়াজ অনুযায়ী পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নকশা চুড়ান্ত হওয়ার পর FCD event থেকে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় জনবলের প্রশিক্ষণ প্রক্রিয়া শুরু হয়। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের FCD ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে অনুষ্ঠিত হবে। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ক্ষেত্রে Commissioning পর্যায়ে অংশগ্রহণের জন্য দক্ষ জনবল সৃষ্টির লক্ষ্যে FCD-এর পূর্বেই প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরুর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

Operating organization-এ রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য পারমাণবিক প্রযুক্তি বিষয়ে প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল গড়ে তোলা আবশ্যক। স্বাক্ষরিত General Contract-এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ, পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সংখ্যক দক্ষ জনবল তৈরীর বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত রয়েছে। দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা বিবেচনায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র সুষ্ঠু ও নিরাপদে পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য Operating organization, NPCBL- এ আনুমানিক ২৭০০ জনবল প্রয়োজন হবে, এর মধ্যে ২৫৩৫ জন রূপপুর প্রকল্প এলাকায় প্লান্টে নিয়োজিত থাকবে।

উক্ত জনবলের ১৪২৪ জনকে General Contract-এর অধীনে ২০১৭ - ২০২২ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে Job Position এবং Job function-এর ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক মানদন্ডের নিরিখে বিভিন্ন মেয়াদে ঠিকাদারের সহায়তায় প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

 

                                                  বছর ভিত্তিক প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা

 

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য জনবল নির্বাচন, পরীক্ষার ব্যবস্থা, প্রশিক্ষণ প্রদান সংক্রান্ত কার্যাবলী সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য বাংলাদেশ ও রাশিয়া উভয় পক্ষ কর্তৃক একটি Joint Training Advisory Commission (JTAC)  গঠন করা হয়েছে।

প্রশিক্ষিত জনবলের মধ্যে প্রয়োজন অনুসারে বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালন রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় লাইসেন্স গ্রহণ করবে এবং সফলতার সাথে প্রশিক্ষণ শেষে কমিশনিং এর পূর্বে দেশে প্রত্যাবর্তন করে রাশান ফেডারেশনের বিশেষজ্ঞদের সাথে যৌথভাবে কমিশনিং পর্যায় হতে কেন্দ্রের দায়িত্ব গ্রহণ করবে।

ভবিষ্যতে রূপপুর এনপিপি পরিচালন, রক্ষণাবেক্ষণে দক্ষ জনবল তৈরীর জন্য রূপপুর প্রকল্প এলাকায় General Contract-এর অধীনে একটি আধুনিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। উক্ত প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রয়োজনীয় সংখ্যক প্রশিক্ষক তৈরীর সংস্থান স্বাক্ষরিত General Contract- রয়েছে। এছাড়াও সুষ্ঠু নিরাপদ পরিচালণ, রক্ষণাবেক্ষণে প্রয়োজনীয় কারিগরি সেবা গ্রহণের জন্য প্রযুক্তি সরবরাহকারী দেশ এবং অভিজ্ঞ প্রতিবেশী দেশ ভারতের সাথে Service Contract এর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ডিজাইন নিরাপত্তা বিষয়ে রাশিয়ার MEPhI বিশ্ববিদ্যালয়ে নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং- উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য অপ্রত্যাশিত ব্যয় ব্যাবস্থাপনা খাত থেকে বিশেষ অনুদানের আওতায় ৪৭ জন শিক্ষার্থীকে রাশিয়ান ফেডারেশনে প্রেরণ করা হয়েছে। উচ্চ শিক্ষাগ্রহণের পর উল্লিখিত শিক্ষার্থীe„›` তাদের যোগ্যতা ও প্রকল্প/বাপশক-এর প্রয়োজন অনুযায়ী রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিচালন রক্ষণাবেক্ষণ কাজে নিয়োজিত হবে।

পারমাণবিক বিদ্যুৎ কর্মসূচী সুষ্ঠুভাবে বাস্তবায়নে মেধাবী, প্রশিক্ষিত দক্ষ জনবল গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশীয় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বিজ্ঞান, প্রকৌশল এবং পারমাণবিক বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিষয়ে স্নাতক স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী মেধাবী নবীন জনবল আবশ্যক। ইতোমধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বাংলাদেশ ইউনির্ভাসিটি অব প্রফেশনাল (বিউপি) নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক স্নাতকোত্তর পর্যায়ের পাঠদান কার্যক্রম শুরু করেছে এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

পারমাণবিক প্রযুক্তি বিষয়ে মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের আকৃষ্ট করার জন্য মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পাঠ্যক্রমে পরমাণু বিজ্ঞান বিষয় অন্তর্ভূক্ত করার জন্য বিজ্ঞান প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় হতে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা কারিকুলামে পরমাণু বিজ্ঞান বিষয় অন্তর্ভূক্তির উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ফলশ্রুতিতে পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য পারমাণবিক প্রযুক্তি বিষয়ে ধারণা সম্পন্ন সহায়ক কর্মী পর্যায়ের প্রয়োজনীয় জনবল তৈরীর সুযোগ ঘটবে। এছাড়াও সাধারণ জনগণ তরুণ সমাজকে পরমাণু প্রযুক্তি সম্পর্কে সম্যক ধারণা দেয়ার জন্য রূপপুর প্রকল্প এলাকায় একটি বড় ধরণের Nuclear Industry Information Canter নির্মাণ করা হবে।


Share with :

Facebook Facebook